কাল থেকে চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভাল ২০১৮

লালগালিচা সংবর্ধনা, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, মাস্টারক্লাস, পুরস্কার বিতরণীসহ বর্ণাঢ্য আয়োজন

Festoon_Schedule-&-Guest-Li
বন্দরনগরী চট্টগ্রামের চলচ্চিত্রপ্রেমী মানুষদের জন্য এবং তরুণ চলচ্চিত্রকারদের চলচ্চিত্র নির্মানে উদ্বুদ্ধ করতে চট্টগ্রামে শুরু হচ্ছে চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৮। কেবল চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণীই নয়, কাল থেকে শুরু এই ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে চলচ্চিত্রকারদের লালগালিচা সংবর্ধনা, চলচ্চিত্র বিশেষজ্ঞ দ্বারা পরিচালিত মাস্টারক্লাস ও দেশ বিদেশ থেকে আগত চলচ্চিত্রকারদের চট্টগ্রাম পরিচিতিসহ রয়েছে আরো অনেক কিছু।

দৈনিক আজাদী’র সার্বিক সহযোগিতায় ও নকশা’র উদ্যোগে পরিচালিত তরুণ চলচ্চিত্রকারদের সংগঠন ‘চিটাগং শর্ট’ তৃতীয়বারের মতো আয়োজন করতে যাচ্ছে মাসব্যাপী চলচ্চিত্র উৎসবের। উৎসবের উদ্বোধনী দিনে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে সকাল ১১টায় উৎসবে বাছাইকৃত ২০টি চলচ্চিত্রের পরিচালকদের লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হবে। চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি কলিম সরওয়ার এই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। লালগালিচা সংবর্ধনার পরপরই অনুষ্ঠিত হবে সংবাদ সম্মেলন। বিকেল ৩টা থেকে নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউটের গ্যালারি হলে মাস্টারক্লাস পরিচালনা করবেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার ও চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রশিক্ষক জনাব হায়দার রিজভী।

উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৭ই জানুয়ারি থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রাম মিলনায়তনে। বেলা ১:৩০টা এবং ৪:৩০টা দুই পর্বে শুরু হওয়া প্রদর্শনীতে নির্বাচিত ২০টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র দেখানো হবে। সন্ধ্যা ৭:৩০টায় উৎসবের প্রধান আকর্ষণ- পুরষ্কার বিতরণী। শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ পরিচালক, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী ও শ্রেষ্ঠ বিদেশী ভাষার চলচ্চিত্র এই পাঁচটি ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দেবেন চট্টগ্রাম ও ঢাকার বিশিষ্ট ও চরচ্চিত্র ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দৈনিক আজাদী সম্পাদক জনাব এম এ মালেক।

পুরস্কার বিতরণীর মাধ্যমে উৎসবের চট্টগ্রাম পর্ব শেষ হলেও উৎসবের প্রদর্শনী ‘ঢাকা শো’ শিরোনামে চলবে ৩রা ফেব্রুয়ারি ২০১৮ থেকে ৭ই ফেব্রুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত। ৫দিনব্যাপী ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য ‘ঢাকা শো’তে প্রদর্শনীর পাশাপাশি থাকছে আলোচনা, মাস্টারক্লাস, সিনেআড্ডা।।

উল্লেখ্য, প্রতিবারের মতো এবারও উৎসবের পৃষ্ঠপোষকতায় আছে দৈনিক আজাদী, ম্যাগাজিন আই, বারকোড রেস্টুরেস্ট গ্রুপ এবং আমরা চট্টগ্রাম।