চিটাগং শর্ট চলচ্চিত্র উৎসব ২০১৯-এ জমাদান শুরু

শুরু হলো চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯ এর চলচ্চিত্র জমাদান পর্ব। উৎসবের নিজস্ব ওয়েবসাইট এবং অনলাইন সাবমিশন পোর্টালসমূহে আজ ১লা জুন বিশ্বব্যাপি একসাথে শুরু হলো উৎসবের সবচে সাশ্রয়ী চলচ্চিত্র জমাদান পর্ব Early Bird পর্ব। একমাস দীর্ঘ এ পর্বে নির্মাতাগণ মাত্র ৮০০ টাকায় বাংলাদেশের যেকোন প্রান্ত থেকে এবং ১২ মার্কিন ডলার পরিশোধ করে বিশ্বের যেকোন দেশ থেকে সর্বোচ্চ ৩০ মিনিট দৈর্ঘের যেকোন সিনেমা চলচ্চিত্র উৎসবের প্রতিযোগিতায় জমা দিতে পারবেন। প্রতিযোগিতায় নিবন্ধনের জন্য শর্ট ফিল্ম জমাদানের সময় চলচ্চিত্রের লিংক, নির্মাতা ও প্রযোজকের জীবনবৃত্তান্ত, পাসপোর্ট সাইজের ছবি, চলচ্চিত্রের পোস্টার, সারসংক্ষেপ (Synopsis) এবং ফি পরিশোধের প্রমাণ হিসেবে পে-অর্ডার/ব্যাংক ড্রাফটের ছবি অথবা ০১৬১৯৩৯৭৯৯৪ নম্বরে পেমেন্ট করা (Payment) অথবা ০১৭১৪১২৩০২৩ নম্বরে সেন্ড করা (Send) বিকাশ ট্রানজেকশন আইডি উল্লেখ করে chittagongshort@gmail.com এ ইমেইল করতে হবে বলে জানান উৎসবটির পরিচালক ও তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা শারাফাত আলী শওকত। ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিতব্য চলচ্চিত্র উৎসবটির ৪র্থ আয়োজনে অনলাইন সাবমিশন পার্টনার হিসেবে FilmFreeway ও Festhome এর পাশাপাশি এবার যুক্ত হয়েছে Withoutabox এবং iamafilm.

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের জনপ্রিয় প্রকাশনা সংস্থা ও ফিল্ম প্রোডাকশন কোম্পানী নকশা’র সামাজিক দায়বদ্ধতা প্রকল্প হিসেবে ২০১৫ সালে আত্মপ্রকাশ করা সামাজিক প্রতিষ্ঠান চিটাগং শর্ট (Chittagong SHORT) এর উদ্যোগে এবং স্বাধীন বাংলাদেশে প্রথম প্রকাশিত এবং চট্টগ্রামের সবচেয়ে প্রভাবশালী ও জনপ্রিয় সংবাদপত্র দৈনিক আজাদী’র সার্বিক সহযোগিতায় ২০১৬ সাল থেকে প্রতিবছর জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে চিটাগং শর্ট চলচ্চিত্র উৎসব। এ উৎসবে ‘আজাদী’র পরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক প্রধান পৃষ্ঠপোষক, ‘আই’ সম্পাদক ও চিটাগং শর্ট-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট ইসমাইল চৌধুরী সভাপতি হিসেবে আছেন। নকশা’র সিওও এবং চিটাগং শর্ট’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সচিব শারাফাত আলী শওকত উৎসব পরিচালক, নকশা’র সিওও এবং চিটাগং শর্ট’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা অচ্যুত কুমার মিত্র যীশু অনুষ্ঠান পরিচালক, সিনে ম্যাগাজিন আই’র নির্বাহী সম্পাদক, তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা ও লেখক আশরাফ আবির উৎসবের জনসংযোগ পরিচালক এবং নকশা’র ব্যবস্থাপক ও চিটাগং শর্ট’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা মো: আলী হোসেন উৎসবের পরিচালক-অফিস ও আর্কাইভস্ হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন। জাতীয় পর্যায়ে পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা আহমেদ হিমু, আবিদ মল্লিক ও গবেষক মুজিব চৌধুরী এ আয়োজনের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে নিযুক্ত আছেন। এছাড়া শিল্পী আকলিমা লিমা, তরুণ আলোকচিত্রী জিকু বড়ুয়া, চিত্রগ্রাহক আশরাফুল সৌরভ, অভিনেতা মো: শরীফ, তরুণ নির্মাতা ইহতিয়াজ ত্বকী, আলোকচিত্রী ও অভিনেতা শাহাদাত জনি, তরুণ চিত্রনাট্যকার আমির মারুফ, সমাজকর্মী সামরিন চৌধুরী, উপস্থাপিকা শারমিন মলি, তরুণ সমাজসেবক শোভন চক্রবর্তী, আনোয়ারুল আজিম, শামসাত ত্বোয়ালেবীনসহ একঝাঁক তরুণ এ আয়োজনে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন।