সংগীতপ্রেমী মানুষের মনে ঠিক সমানভাবে বিরাজ করেছেন আইয়ুব বাচ্চু

 

স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশের সংগীতাংগনে ৪ দশকে ৪ টি প্রজন্ম এসেছে। প্রতি দশকে ভিন্ন ধরণের, ভিন্ন রুচির, ভিন্ন জনারার গান দর্শকেরা পছন্দ করেছে। এজন্যে বাংলাদেশের অধিকাংশ শিল্পীদের ক্যারিয়ারের ‘ফর্ম’ ৭/৮ বছরের বেশী টেকে না। দেখা যায়, যে ধরণের গান দর্শকেরা এখন তুমুলভাবে শুনছে, বছর ‘ক পরেই সে ধরণের গান মানুষ আর ঠিক ওভাবে গ্রহন করছে না। কিন্তু এই বৈচিত্রপূর্ণ সময়েও যে ব্যাক্তিটি বাংলাদেশের প্রতিটি সংগীতপ্রেমী মানুষের মনে ঠিক সমানভাবে বিরাজ করেছেন, তিনি আইয়ুব বাচ্চু। কি না করেছেন তিনি! সময়ে সময়ে নিজেকে পরিবর্তন করেছেন, নতুনত্বকে স্বাগত জানিয়েছেন, বিতর্ক এড়িয়ে গেছেন, প্রতিনিয়ত নিজেকে নিয়ে ‘নিরীক্ষা’ করেছেন, নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্য এক উচ্চতায়। সে যায়গা এতটাই উচু, সেখানে আর কাওকে বসানো যায়না, কেবল মাথা উঁচু করে বলাই যায়, “আমাদের একজন আইয়ুব বাচ্চু আছেন”। ফাইভ স্টার হোটেলের মিউজিক্যাল নাইট থেকে শুরু করে কনসার্ট বলুন, আনপ্লাগপড শো বলুন, পাড়ায় আয়োজিত ব্যান্ড শো এমনকি বন্ধুদের আড্ডায় গিটার নিয়ে ৩ টা গান গাইলে এর মধ্যে তার একটা গান থাকবেই। দেশের সকল শ্রেণীর মানুষের কাছে গান গেয়ে এভাবে পৌঁছে যাওয়া, নাহ, বাংলাদেশে এটা আর কারো পক্ষে সম্ভব হয়নি! আজ কিংবদন্তী এই শিল্পীর মৃত্যুতে পুরো দেশে যে থমথমে অবস্থা, তা অস্বাভাবিক কিছু নয়।

দেখে নেওয়া যাক আইয়ুব বাচ্চুর জীবনের জানা-অজানা বিভিন্ন দিকগুলোর কথা-

  • জন্ম : ১৬ আগস্ট, ১৯৬২; চট্টগ্রাম
    মৃত্যু : ১৮ অক্টোবর, ২০১৮; ঢাকা
  • চট্টগ্রামের ‘সরকারী মুসলিম হাই স্কুল’এর ছাত্র আইয়ুব বাচ্চু জীবনের প্রথম ব্যান্ড ‘আগলি বয়েজ’ নিয়ে শো করতেন চট্টগ্রামের স্থানীয় অনুষ্ঠানগুলোতে। পরবর্তীতে, ১৯৭৮ সালে আরেক কিংবদন্তী শিল্পী ‘জেমস’ এর সাথে মিলে গড়ে তোলেন ব্যান্ডদল ‘ফিলিংস’। ‘ফিলিংস’ দিয়েই মিউজিক ক্যারিয়ার শুরু তার।
  • ১৯৮০ থেকে আরেক জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘সোলস’ এর সাথে কাটিয়েছেন ১০ টি বছর।
  • ১৯৯১ সালে আইয়ুব বাচ্চু প্রতিষ্ঠা করেন তার নিজের ব্যান্ডদল এল.আর.বি।
  • LRB ব্যান্ডের নাম প্রথমে ছিল Yellow River Band। কিন্তু পরবর্তীতে নাম পালটে Love Ruins Blind (LRB) রাখা হয়।
  • শুধু কণ্ঠশিল্পী নন, বাংলাদেশের সংগীত অংগনের অন্যতম সফল এ গীতিকার আইয়ুব বাচ্চু। এখন অনেক রাত, ফেরারি মন, বারো মাস তোমায় ভালোবাসিসহ কালজয়ী অনেক গানের স্রষ্ঠাও তিনি।
  • গুণী এ সুরকার সুর দিয়েছেন অসংখ্য গানে। আজম খান, তপন চৌধুরী, কুমার বিশ্বজিৎ এর মতো গুণী শিল্পীদের অনেক গানেই সুর দিয়েছেন আইয়ুব বাচ্চু।

‘দৈনিক আজাদী’ কে নিয়ে আইয়ুব বাচ্চুর এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকার: