১ ও ২ ফেব্রুয়ারি ৪র্থ চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯

Guests-Piccture_Ad

বৈচিত্র্যপূর্ণ আয়োজনে তরুণ নির্মাতাদের জন্য থাকছে অংশগ্রহণের বিশেষ সুযোগ

তরুণ চলচ্চিত্রকারদের সংগঠন ‘চিটাগং শর্ট’, দেশের চলচ্চিত্রকারদের প্রেষণাদানের অংশ হিসেবে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও আয়োজন করেছে চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল। প্রযোজনা সংস্থা ‘নকশা’ এবং স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পত্রিকা ‘দৈনিক আজাদী’র সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত এই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন দৈনিক আজাদী’র পরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক এবং পুরস্কার বিতরণ করবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র আ জ ম নাসির উদ্দিন। সভাপতিত্ব করবেন চিটাগং শর্টের প্রেসিডেন্ট ইসমাইল চৌধুরী। উৎসবের মাস্টারক্লাশ পরিচালনা করবেন দেশবরেণ্য চলচ্চিত্রকার বদরুল আনাম সৌদ। উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চলচ্চিত্রকার জ্যাঁ নেসার ওসমান, প্রবীন চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রশিক্ষক ও নির্মাতা হায়দার রিজভী, চিত্রনাট্যকার শাহজাহান শামীম এবং সময়ের সাড়াজাগানো চলচ্চিত্র পরিচালক রায়হান রাফী।

৪র্থ চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের পর্দা উঠছে বাংলাদেশের সাহিত্য-সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের মাস ফেব্রুয়ারির শুরু থেকে। বিগত আয়োজনগুলো নিয়ম মেনে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে হলেও জাতীয় নির্বাচনের কারণে এবারের আয়োজন পিছিয়ে চট্টগ্রামে মূল অনুষ্ঠান ১-২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বন্দর কলেজ শো ৭ ফেব্রুয়ারি, সানশাইন শো ১৪ ফেব্রুয়ারি এবং ১৮-২০ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ঢাকা শো। ১ ফেব্রুয়ারি দেশি-বিদেশী চলচ্চিত্রকারদের পাহাড়-নদী-সাগরঘেরা ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতির লালনভূমি চট্টগ্রামের সাথে পরিচয়ের পর ২ ফেব্রুয়ারি, শনিবার চলচ্চিত্র উৎসবের মূল পর্ব আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন, নির্মাতাদের লালগালিচা সংবর্ধনা, মাস্টারক্লাশ, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণী।

১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টায় দৈনিক আজাদী মিলনায়তনে চলচ্চিত্রকারদের সিনেআড্ডা। তরুণ নির্মাতা কাজী আশরাফ এলাহীর সঞ্চালনায় সিনেআড্ডায় অতিথি নির্মাতা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ইউরোপিয়ান ঘরানার নির্মাতা ও প্রখ্যাত চলচ্চিত্র শিক্ষক হায়দার রিজভী, উৎসবের জুরি বোর্ডের প্রধান, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক মহাব্যবস্থাপক ও নির্মাতা জ্যঁ-নেসার ওসমান, চিত্রনাট্যকার ও নির্মাতা শাহজাহান শামীম এবং এ সময়ের আলোচিত তরুণ চলচ্চিত্র পরিচালক রায়হান রাফী। সিনেআড্ডার পাশাপাশি দেশ-বিদেশ থেকে আগত নির্মাতাদের চট্টগ্রামের ইতিহাস ঐতিহ্যের সাথে পরিচয়ের উদ্দেশ্যে নগরভ্রমণ ও মেজবান।

CineAdda-Poster-Cover_00

২ ফেব্রুয়ারি শনিবার ঘড়ির কাঁটার সাথে তাল মিলিয়ে সকাল দশটায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক সদ্য উদ্বোধিত বঙ্গবন্ধু হল-এ উৎসব উদ্বোধন। উৎসব পরিচালক শারাফাত আলী শওকতের পরিচালনায় নির্বাচিত চলচ্চিত্রকারদের লালগালিচা সংবর্ধনা চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ট্রেডমার্ক আনুষ্ঠানিকতা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন-সিইউজে’র সভাপতি চলচ্চিত্র সমালোচক কবি নাজিমুদ্দিন শ্যামল, নাট্যজন প্রদীপ দেওয়ানজি, বারকোড ক্যাফেগ্রুপের কর্ণধার মঞ্জুরুল হক, ডেভেলপার কোম্পানী সিপিডিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী ইফতেখার হোসেন, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেডের হেড অব অপারেশন (অফ-ডক) মাহিনুল হক, চট্টগ্রামে ইংরেজি মিডিয়াম শিক্ষায়তনের পুরোধা সমাজসেবক সাফিয়া গাজী রাহমান, প্রখ্যাত নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদ এবং চিটাগং শর্টের উপদেষ্টা ও উৎসবের জুরি বোর্ডের সম্মানিত সদস্যবৃন্দ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরপরই সাড়াজাগানো চলচ্চিত্র পরিচালক বদরুল আনাম সৌদের পরিচালনায় মাস্টারক্লাশ প্যাশন।

B.A.Saud.jpg

২ ফেব্রুয়ারি শনিবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের নবম তলায় নব-নির্মিত সুপরিসর বঙ্গবন্ধু হলে বেলা ১২:৩০টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত কর্ণফুলী, হালদা, সাঙ্গু শিরোনামের দেড়ঘন্টা সময়ের প্রতিটি শো’তে দেশী-বিদেশী নির্বাচিত চলচ্চিত্র নির্মাতাদের দর্শকের সাথে পরিচয় করিয়ে দেবেন তরুণ নির্মাতা ও শিল্পী মোমেন খান, আলিশা আলিফা, নাসের আহাম্মেদ, প্রজ্ঞা পারমিতা ও দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা রায়হান রাফী। প্রতি শো’র টিকেটের মূল্য রাখা হয়েছে ৫০টাকা। যাঁরা ৩টি শো-ই দেখবেন উৎসবে নির্বাচিত বাংলাদেশী চলচ্চিত্রগুলোর মধ্য থেকে তাঁরাই নির্বাচন করবেন দশ হাজার টাকা প্রাইজমানির ‘বেস্ট অডিয়েন্স চয়েস এ্যাওয়ার্ড’ এবং পাবেন টিকেটের মূল্যের উপর ২০% বিশেষ ছাড়। ০১৬১৯৩৯৭৯৯৪ নম্বরে এসএমএস করে আগ্রহীরা সিনেআড্ডা, মাস্টারক্লাশ ও শো’র অগ্রিম টিকেট বুক করতে পারবেন।

২ ফেব্রুয়ারি শনিবার সন্ধ্যে ৬:৩০টায় উৎসবের বহুলাকাঙ্খিত ও প্রতীক্ষিত এ্যাওয়ার্ডিং অনুষ্ঠান। পুরস্কার বিতরণী ও সমাপনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মাননীয় মেয়র আ জ ম নাসির উদ্দিন। বিশেষ অতিথি নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদ, জুরিবোর্ড চেয়ারম্যান জ্যঁ নেসার ওসমান, জুরি মেম্বার ও চলচ্চিত্র শিক্ষক হায়দার রিজভী, জুরি মেম্বার ও নির্মাতা শাহজাহান শামীম, চিটাগং শর্টের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য প্রখ্যাত নির্মাতা রায়হান রাফী, দ্য সানশাইন এডুকেশন গ্রুপের চেয়ারম্যান শিক্ষাবিদ সাফিয়া গাজী রাহমান, সিপিডিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী ইফতেখার হোসেন, বারকোড ক্যাফে গ্রুপের স্বত্ত্বাধিকারী মঞ্জুরুল হক ও সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেডের পরিচালক এবং সিওও ক্যাপ্টেন কামরুল ইসলাম মজুমদার।

Festival-Poster.jpg

উল্লেখ্য, এবার অফিশিয়াল সিলেকশনে বাংলাদেশ ছাড়াও ছয়টি দেশের চলচ্চিত্র স্থান পেয়েছে। বাংলাদেশ থেকে মেহেদী হাসান রানার ‘জলকাব্য’, গোলাম রব্বানীর ‘কালার অফ লাইফ’, অঙ্কন আদিত্য আচার্য্যর ‘ঘুড়ি’, সাইফুল আলম বাপ্পীর ‘পুতুল’, রুদ্রনীল আহমেদের ‘অর্ঘ্য’, রানা মাসুদের ‘নিবাস’, শাওলিন শাওনের ‘জয়া’ ও রাফাত জামিলের ‘দ্য মোন’ স্থান পেয়েছে। এছাড়া বিদেশী চলচ্চিত্রকারদের মধ্যে প্রেম সিংয়ের ‘কত্রন’ (ভারত); মার্কাস হানিশের ‘লাইব্যাসব্রিফ’ (জার্মানি); ইয়াশবর্ধন মিত্রের ‘দ্য মার্কেট’ (ভারত); মার্টিন টাইডির ‘ফিউজিটিভ’ (ইন্দোনেশিয়া); তথাগত ঘোষের ‘দ্য ডেমন’ (ভারত), বিনয় জাইসওয়ালের ‘দ্য রকস্টার’ (ভারত); মেহমেত তিগুর ‘এ ফেরি টেল’ (তুরস্ক); অলিভিয়ার ম্যগিস ও ফেডরিক ডি বিউলের ‘মে ডে’ (বেলজিয়াম); রাহুল শ্রীবাস্তবের ‘ইতওয়ার’ (ভারত); ক্রিস্টোফার গ্রব ও রেবেকা ক্লিট্জকির ‘হার্ড অন ফোর : দ্য ডাবিংকমেডি’ (জার্মানি); ধ্রুব ত্রিপতির ‘১০*১০ফিট’ (ভারত) এবং সেবাস্তিয়ান মার্কেজের ‘দ্য ট্রি এন্ড দ্য পাইরোগ’ (ফ্রান্স) অফিশিয়াল সিলেকশন হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে।

চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯ এর এডুকেশন পার্টনার হিসেবে আছে দ্য সানশাইন এডুকেশন গ্রুপ, অর্গানাইজিং পার্টনার হিসেবে আছে সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেড ও সিপিডিএল, হসপিটালিটি পার্টনার হিসেবে আছে বারকোড ও আমরা চট্টগ্রাম এবং মিডিয়া পার্টনার হিসেবে আছে সিনে ম্যাগাজিন আই