১৮ জানুয়ারী ২০২০ চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে ৫ম চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

১৮ জানুয়ারী ২০২০ পর্দা উঠছে বহুল আকাঙ্খিত চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের। ‘থিঙ্ক বিগ, ফিল্ম শর্ট’ শিরোনামে ২০১৬ সালে শুরু হওয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের এটি পঞ্চম আয়োজন। অনুষ্ঠানমালায় রয়েছে লালগালিচা সংবর্ধনা, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণ। উৎসব পরিচালক শারাফাত আলী শওকতের সঞ্চালনা ও চিটাগং শর্টের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট ইসমাইল চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দৈনিক আজাদী’র সম্পাদক এম এ মালেক।

এবারের আয়োজনে ভারত, ইরান, যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি, পাকিস্তান, মিশর, জার্মানি, পর্তুগাল, বাংলাদেশসহ ১৭টি দেশের শতাধিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র থেকে প্রদর্শনীর জন্য নির্বাচিত ২১টি সিনেমার নির্মাতা-কলাকুশলীদের লালগালিচা সংবর্ধনার প্রদানের মাধ্যমে ১৮ জানুয়ারী শনিবার সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে পর্দা উঠবে উৎসবের। অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রবীণ চলচ্চিত্রকার-শিক্ষক হায়দার রিজভী, চলচ্চিত্র পরিচালক ও বিজ্ঞাপন নির্মাতা জ্যাঁ নেসার ওসমান, সানশাইন গ্রামার স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ সাফিয়া গাজী রহমান, চিটাগং ক্লাবের ভাইস চেয়ারম্যান ও বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের কর্ণধার মনজুরুল হক, প্রখ্যাত শব্দনির্দেশক নাহিদ মাসুদ, দৈনিক আজাদীর চিফ রিপোর্টার হাসান আকবর, সিইউজের সভাপতি ও চলচ্চিত্র সংগঠক নাজিমুদ্দিন শ্যামল, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষক চলচ্চিত্রকার শৈবাল চৌধুরী, উৎসবের জুরি ও চিত্রনাট্যকার শাহজাহান শামীম এবং সামিট এ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেডের পরিচালক ও সিওও ক্যাপ্টেন কামরুল ইসলাম চৌধুরী।

সকাল সাড়ে ১১টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কর্ণফুলী, হালদা, সাঙ্গু শিরোনামের তিনটি প্রদর্শনীর প্রতিটিতে ৭টি করে সর্বমোট ২১টি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমা প্রদর্শিত হবে। ৫০ টাকা মূল্যমানের টিকেটের বিনিময়ে প্রদর্শনী সকলের জন্য উন্মুক্ত।

সকাল সাড়ে ১১টার প্রথম শো ‘কর্ণফুলী’তে প্রদর্শিত হবে জাহিদ গগনের ‘প্রেম পুরাণ’ (বাংলাদেশ), জিশনু ক্রিশনান এর ‘ডিলাপিডেটেড ওয়েল’ (ভারত), আসিফ জামিলের ‘এনিম্যালস’ (বাংলাদেশ), সালমান আলমের ‘নিটেড বিলিফস’ (পাকিস্তান), আহমেদ হিমুর ‘নামগিজা জুমাং’ (বাংলাদেশ), গনজালো গুয়াজারডোর ‘পেপার বোটস’ (ইথিওপিয়া) এবং শাহাদাত সেতুর ‘ইউ’ (বাংলাদেশ)।

বেলা দেড়টার দ্বিতীয় শো ‘হালদা’য় ত্রিশা নন্দীর ‘ভাসান’ (ভারত), প্রিয়ামা গোস্বামীর ‘ডেথ অফ এন অডিয়েন্স’ (ভারত), হাসনাত সোহানের ‘সাম এনশায়ান্ট ট্রিস’ (বাংলাদেশ), আবদুল্লাহ শাহিনের ‘ক্লীটস’ (তুর্কী), সৌমিত্র সিং এর ‘দ্য ওয়ালেট’ (ভারত), শাওলিন শাওনের ‘পাপ’ (বাংলাদেশ) এবং এমিলিয়া রুইজের ‘টু ফিল ইউর ব্রোকেন আর্মস’ (স্পেন)।

বেলা সাড়ে ৩টায় অনুষ্ঠিতব্য তৃতীয় শো ‘সাঙ্গু’তে প্রদর্শিত হবে নাফিসা হোসাইনের ‘এ নাইট’স টেল’ (বাংলাদেশ), আদিত্য অগ্নিহোত্রির ‘ডেমোক্রেসি’ (ভারত), পাভেল পালের ‘চাঁদের বুড়ি’ (ভারত), এন্ড্রু স্কটের ‘হর্নস অব কলকাতা’ (নিউজিল্যান্ড), হোসাইন রাবেঈ এর ‘ডেডওয়াটার’ (ইরান), মাশরুর পারভেজের ‘দ্য ডগ’স ইল্যুশন’ (বাংলাদেশ) এবং শ্রীরাজ রাজিবের ‘সেকেন্ড প্রাইজ’ (ভারত)।

উল্লেখ্য, প্রতি শো’র টিকেটের মূল্য রাখা হয়েছে ৫০টাকা। যাঁরা ৩টি শো-ই দেখবেন উৎসবে নির্বাচিত বাংলাদেশী চলচ্চিত্রগুলোর মধ্য থেকে তাঁরাই নির্বাচন করবেন দশ হাজার টাকা প্রাইজমানির ‘বেস্ট অডিয়েন্স চয়েস এ্যাওয়ার্ড’ এবং পাবেন টিকেটের মূল্যের উপর ২০% বিশেষ ছাড়। ০১৬১৯৩৯৭৯৯৪ নম্বরে এসএমএস করে আগ্রহীরা সিনেআড্ডা, মাস্টারক্লাশ ও শো’র অগ্রিম টিকেট বুক করতে পারবেন।

 

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নির্মাতাদের বহু প্রতীক্ষিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ নির্মাতা, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী, শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক ও দর্শক বিচারে সেরা চলচ্চিত্র- এই ৭টি ক্যাটেগরিতে পুরস্কার দেয়া হবে ৫ম চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে। পুরস্কারের সর্ব মোট অর্থমূল্য প্রায় ১ লক্ষ টাকা। বিজয়ী নির্মাতাদের হাতে সম্মাননাপত্র, ক্রেস্ট এবং প্রাইজমানির চেক তুলে দেবেন প্রধান অতিথি এম এ মালেকসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা।

 

উল্লেখ্য, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বারকোড ক্যাফে গ্রুপ, ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান সিপিডিএল, সানশাইন এডুকেশন গ্রুপ, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেড, হ্যামার স্ট্রেন্থ ফিটনেস সেন্টার এবং সিনে ম্যাগাজিন আই চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের যৌথ আয়োজক ও পার্টনার হিসেবে সহযোগিতা প্রদান করে আসছে।